সফটওয়্যার ডেভেলপারদের সারাদিনের রুটিন সাধারণত কেমন হয়?


(Aniket Prantar) #1

প্রোগ্রামিং জিনিসটায় মুগ্ধতা ছিল সবসময়। নিজে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্টে পড়তে পারিনি বলে হয়ত আকর্ষনটা আরেকটু বেশী। আপনারা যারা সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার আছেন, তাদের লাইফটা আসলে কাটে কি করে?


(Sayem Hossain) #2

প্রায় তিন-চার বছর যাবত কোড লিখছি, দৈনন্দিন রুটিনটা কখনো ‘রূটিনের মত’ হয় নি।

নিজের দিনগুলো কিভাবে কাটছে তার একটা স্ন্যাপশট দিচ্ছি।

সকালে ঘুম থেকে উঠতে গিয়ে “আরো দশ মিনিট” ঘুমোতে গিয়ে বেশ লেট হয়ে যায়। তড়িঘড়ি করে ফ্রেশ হয়ে নিতে গিয়ে হয়তোবা ঘুমে ঢুলুঢুলু চোখে চেয়ারে বসে আরো কিছুক্ষন ঘুমিয়ে নিই।
এটা হচ্ছে আগের রাতে লেট করে ঘুমাতে যাওয়ার ফল, প্রতিদিনের আফসোস। সময়মত বেডে যেতে না পারলে পরের দিনটা আপনি ধামা ধরবেন। মানে ক্রিঞ্জি কাটবে।

যাহোক, নয়টার দিকে স্ল্যাক ওপেন করে চা-কফি নিয়ে ডেস্কের সামনে বসি। কিছুক্ষনের মধ্যে স্ট্যান্ডআপ মিটিং শুরু হয়। আগেরদিনের কাজের রিভিউ এবং আজকে কি করছি এসব নিয়ে আলোচনা হয় সাধারনত। মিটিং শেষে কানে হেডফোন দিয়ে একটা রবীন্দ্রনাথের প্লেলিস্ট চালু করে দেই। ঈদানিং সকাল বেলা বেশীরভাগ সময়ই রবীন্দ্রসংগীত শুনতে ভালো লাগে। একটা টাস্ক নিয়ে বসি।

লাঞ্চ শেষে বেশ ক্রিঞ্জি লাগে। ঘুমটা খুবই দরকার হয় এই সময়ে। বেশীরভাগ সময় একটা পাওয়ার ন্যাপ নেয়া হয়ে ওঠে না। তার প্রধান কারন হচ্ছে, ইন্ট্রেস্টিং কোন ইস্যু আনসলভড রেখে লাঞ্চে যাওয়া। তবে একটা পাওয়ার ন্যাপ নিতে পারলে মন ফ্রেশ হয়ে যায়।

কাজ শেষ হতে ৭-৮ টা বেজে যায় কোন কোন দিন। বেশীরভাগ প্রোগ্রামারই খুবই প্যাশনেট। কাজের মধ্যে থাকলে সময়জ্ঞান থাকে না। সো কাজ শেষে বাসায় আসতে আসতে নয়টা বেজে যায়। তখন দিনের আর কিছু অবশিষ্ট থাকে না। ঘন্টা দুয়েকের জন্য লাইফটা এনজয় করার চাইতে আরো একটু বেশী সময় নিতে গিয়ে ঘুমোতে লেট হয়ে যায়। যা পরেরদিনের অস্বস্তির কারন হয়। এটা একটা কন্টিনিউয়াস সাইকেল। খব কম সংখ্যক ডেভেলপারই এই সাইকেল থেকে বের হতে পারে।

আমাদের এন্টারটেইনমেন্টের বেশীরভাগ অংশ জুড়েই থাকে নতুন কোন কুল টেকনোলজি শেখা, কিংবা ইউটিউবে ডকুমেন্টারি দেখা। উইকএন্ডে গার্লফ্রেন্ড নিয়ে একটু ঘুরতে বের হওয়া। তবে খুব কম সংখ্যক ডেভেলপারেরই গার্লফ্রেন্ড থাকে। মেয়েরা মানুষের প্রেমে পড়ে, রোবটের নয়। :wink: